দিনাজপুরে আমন ধান কাটায় ব্যস্ত কৃষকরা

দিনাজপুরে আগাম জাতের আমন ধান কাটা ও মাড়ায় ব্যস্ত কৃষকরা। দামও ভালো পাওয়ায় তাদের চোখেমুখে এখন হাসি। ফলন ভাল হওয়ায় বন্যার ক্ষয়ক্ষতি কিছুটা কাটিয়ে উঠা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন চাষিরা। আর আগাম জাতের আমন ধান বাজারে চালের দাম কমাতে প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছে কৃষি বিভাগ।

সাম্প্রতিক বন্যায় দিনাজপুরে আমন রোপা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। নতুন করে আমন রোপা আবাদ নিয়েও শঙ্কায় ছিলেন কৃষকরা। তবে আগাম জাতের আমন আবাদ করে ভালো ফলন দেখে কৃষকরা খুশি। বাংলাদেশ ধান গবেষণার উদ্ভাবিত ব্রি ধান-৩৩, ব্রি ধান-৫৬, বিনা-৭সহ হাই ব্রীড ও কোট্রা পারি আগাম জাতের হওয়ায় ইতোমধ্যে কাটা শুরু হয়েছে।

এবার বন্যাসহ নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও ভাল ফলন পেয়ে খুশি কৃষকেরা। আশ্বিন -কার্তিক মাসে তেমন কাজ না থাকলেও এবার ধান ওঠায় খুশি শ্রমিকরাও।

চালের বাজারে অস্থিরতা কাটাতে আগাম জাতের আমন ধান ভালো প্রভাব ফেলবে বলে মনে করে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরভ

দিনাজপুর জেলায় এবার আমন মৌসুমে ২ লাখ ৫৬ হাজার ৭১০ হেক্টর জমিতে ধান আবাদ করা হয়েছে। এর মধ্যে আগাম ধানের জাত রোপণ করা হয়েছে প্রায় ১৬ হাজার হেক্টর জমিতে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment