ফ্রিজে খাবার ভাল থাকে কত দিন?

বিনোদন রিপোর্ট

ফ্রিজ ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকা জরুরি। ফ্রিজে খাবার রাখার সময় অজান্তেই বেশ কিছু ভুল হয়ে যায়। যা থেকে দেখা দিতে পারে নানা সমস্যা। এখনকার ফ্রিজগুলিতে যে ভাবে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা হয়, তাতে স্বচ্ছন্দে দিন সাতেক খাবার রেখে দিতে পারেন।

ব্যস্ততাময় জীবনে হেঁশেল সামলাতে ফ্রিজের উপর ভরসা রাখা ছাড়া উপায় নেই। অনেকেই আছেন, যাঁরা বাড়ি এবং অফিস একা হাতে সামলান। ফলে অফিস বেরোনোর আগে রান্না করার একটা চাপ থাকে। ফ্রিজ থাকলে রোজ তাড়াহুড়ো করে রান্না করতে হয় না। একেবারে বেশি করে রান্না করে রাখলে পরের দু-এক দিন নিশ্চিন্ত। আবার ব্যস্ততার কারণে প্রতি দিন বাজার যাওয়ারও সময় থাকে না। ফলে ছুটির দিনে প্রয়োজনীয় শাকসব্জি, মাছ-মাংস কিনে ফ্রিজে রেখে দিলে সপ্তাহভর বাজার যাওয়ার চাপ মাথায় ততটা থাকে না।

কিন্তু ফ্রিজে রাখা খাবার খাওয়া শরীরের জন্য ঠিক না কি ভুল, তা নিয়েও রয়েছে দ্বন্দ্ব। পুষ্টিবিদরা জানাচ্ছেন, এখনকার ফ্রিজগুলিতে যে ভাবে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা হয়, তাতে স্বচ্ছন্দে দিন সাতেক খাবার রেখে দিতে পারেন। অনেকে তা করেনও। তবে ফ্রিজে খাবারদাবার রাখার ব্যাপারে একটু সতর্ক থাকা জরুরি। ফ্রিজে খাবার গুছিয়ে রাখার সময় অজান্তেই বেশ কিছু ভুল হয়ে যায়। যা থেকে দেখা দিতে পারে নানা সমস্যা।

ফ্রিজে খাবার রাখার সময় যে জিনিসগুলি মাথায় রাখবেন :

১) জমাট বরফ না গলা পর্যন্ত, মাছ বা মাংস আলাদা করা যায় না। ফলে রান্নার আগে ডিপ ফ্রিজ থেকে বার করে মাছ, মাংস কিছু ক্ষণ ঘরের তাপমাত্রায় রেখে দেওয়া হয়। তার পর সাধারণ তাপমাত্রায় চলে এলে রান্নার জন্য যতটুকু প্রয়োজন, ততটা রেখে বাকিটা আবার ফ্রিজে তুলে দেওয়া হয়। এই ভাবে অনেক ক্ষণ বাইরে রাখার পরে বাকি খাবারটি তুলে দেওয়া হলে তাতে ব্যাক্টেরিয়া বাসা বাঁধতে পারে। তাপমাত্রার হেরফেরের জন্য এমনটা হয়। তাই এক বারে বেশ কিছু দিনের জন্য রাখতে হলে, আলাদা বাক্সতে ভরে রাখুন। তা হলে নির্দিষ্ট কোনও দিনের জন্য যেটুকু দরকার, সেটাই বাইরে বার করে নিলেই হয়।

২) রান্না করা খাবারের ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার। বার বার ফ্রিজ থেকে খাবার বার করে, সেটি গরম করে আবার ফ্রিজে তুলে না রাখাই ভাল। বরং আলাদা পাত্রে খাবার রাখুন। যখন যেটা দরকার বার করে নিলেই হল।

৩) অনেকের ধারণা, গরম অবস্থায় খাবার ফ্রিজে রাখলে সেটি পচে যায়। তা নয়। খাবার ঠান্ডা করে ফ্রিজে তোলা হয়, যাতে কম্প্রেসারের উপর চাপ কম পড়ে। বরং অল্প গরম অবস্থাতেই খাবার ফ্রিজে রাখতে পারেন। খাবার নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় নেই।

৪) সারা সপ্তাহের জন্য শাকসব্জি এবং ফলে কিনে এনে ফ্রিজে রেখে দেন অনেকেই। তাতে বার বার বাজার যাওয়ার ঝক্কি আর থাকে না। ফ্রিজে রাখলে ফল, সব্জি নষ্ট হয় না ঠিকই। কিন্তু অনেক দিন রেখে দিলে শাকসব্জি এবং ফলে থাকা ভিটামিন, মিনারেলস, ফাইবারের মতো উপকারী উপাদান কমে যায়। ফলে তখন খেয়েও আর কোনও সুফল পাওয়া যায় না।

৫) রান্না করা খাবার ফ্রিজে রাখার সময় অতি অবশ্যই ঢাকা দিয়ে রাখুন। না হলে ফ্রিজে থাকা অন্য খাবারের গন্ধ মিলেমিশে এক হয়ে যাবে। তাতে খাবারের আসল স্বাদটাই হারিয়ে যাবে। তাই খাবার সব সময় ঢাকা দিয়ে রাখবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button