মাদারীপুর শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানী অভিযোগ

মোঃ আরিফুর রহমান, মাদারীপুর প্রতিনিধি

মাদারীপুরে একটি সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি জানাজানির পর বিচার না পেয়ে লোকলজ্জার ভয়ে হোস্টেল ছেড়ে বাড়ি চলে গেছে নির্যাতিতা। এ ঘটনায় অন্য ছাত্রীদের মাঝে বিরাজ করছে চাপাক্ষোভ। সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছে তারা। এর আগেও এমন অপকর্মের কারনে সাময়িক বহিস্কৃত হন অভিযুক্ত শিক্ষক। এরইমধ্যে কলেজ থেকে অভিযুক্ত শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেয়া হয়েছে।

মাদারীপুরে প্রত্যন্ত এলাকা ডাসার উপজেলার দক্ষিন ডাসারে অবস্থিত সরকারি শেখ হাসিনা একাডেমি এ্যান্ড উইমেন্স কলেজ। যেখানে ৩ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। এরমধ্যে বিভিন্ন জেলার ৮শ’ শিক্ষার্থীরা পড়ালেখার সুবাধে আবাসিক হোস্টেলে থাকে। তাদের মতো বেগম রোকেয়া ছাত্রীনিবাসে থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ওই শিক্ষার্থী পড়ালেখা করতো। গত ২৪ জুলাই একা প্রাইভেট পড়ানোর কথা বলে ওই শিক্ষার্থীকে ডেকে আনে হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আবদুস সামাদ তালুকদার। পরে কলেজের ২০৪ নাম্বার রুমের ভেতর যৌন হয়ারনী করে বলে অভিযোগ নির্যাতিতার।

বিষয়টি কলেজের অধ্যক্ষ বরাবর বিচার চেয়ে লিখিত দেয় ওই শিক্ষার্থীরা। ঘটনার দেড়মাসেও বিচার না পাওয়ায় হোস্টেল ছেড়ে বাড়ি চলে গেছে নির্যাতিতা। এ ঘটনায় অন্য শিক্ষার্থীদের মাঝে বিচার করছে আতঙ্ক। বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করায় কলেজের কম্পিউটার অপারেটরকেও হুমকি দিয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে অভিযুক্ত শিক্ষক। এই ঘটনার বিচার দাবি করেছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

এ ব্যাপারে জানতে কলেজ গিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে পাওয়া যায়নি। ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের জুনে হিসাববিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কলেজটিতে যোগদান করেন আবদুস সামাদ তালুকদার। এর আগেও এমন অপকর্মের কারনে সাময়িক বহিস্কৃত হন অভিযুক্ত শিক্ষক।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button