লাশের গায়ে কয়েকশত লাঠির আঘাতের চিহ্ন !

যশোর প্রতিনিধি

যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানার রঘুনাথপুর সীমান্তের ভারত সংলগ্ন কাটাতারের নিকট থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির (৪০) মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পোর্ট থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে রঘুনাথপুর সীমান্তের এমপি ২০/১৩ টি পিলার হতে আনুমানিক ভারত সীমান্ত থেকে ১৫ গজ বাংলাদেশ সীমান্তের অভ্যন্তর খালপাড় থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় মৃতদেহটি উদ্ধার হয়। তার গায়ে একাধিক আঘাতের চিহ্ন এবং দুই পা বাঁধা ছিল। কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এটা জানা না গেলেও অভিযোগের তীর ভারতীয় সীমান্তরক্ষী (বিএসএফ) এর দিকে।

মৃতদেহের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন যশোরে নাভারণ “খ” সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান ও যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-পরিচালক সাজ্জাত হোসেন। অপর প্রান্তে বিএসএফ এর টহল দলকে তাদের সড়ক থেকে নেমে এসে মৃতদেহের ২০ গজের মধ্যে অস্ত্রহাতে টহল দিতে দেখা গেছে।

এলাকাবাসী জানান, সকালের দিকে গ্রামের কৃষকরা মাঠে কাজ করার সময় একটি মৃতদেহ দেখে বেনাপোল পোর্ট থানার পুলিশকে জানান। পুলিশ রঘুনাথপুর মাঠ থেকে দুপুর ১২ টার দিকে মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে কেউ তাকে মেরে মাঠে ফেলে গেছে বলে মনে করা হচ্ছে। মৃতদেহের শরীরে নির্যাতন ও টেনে আনার দাগ আছে।

অজ্ঞাত ব্যক্তিটির গায়ে কয়েকশত লাঠির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ হত্যা করতে পারে বলে ধারণা এলাকাবাসীর। কারণ সীমান্ত অঞ্চলে এটা কোন নতুন ঘটনা নয়। তবে তার নাম ঠিকানা এখনো পাওয়া যায়নি

যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-পরিচালক সাজ্জাত হোসেন বলেন, কি ভাবে কারা তাকে হত্যা করেছে এই মুহুর্তে বলা যাবে না। এটা তদন্ত সাপেক্ষে জানা যাবে। আমরা বিএসএফের সাথে কথা বলেছি তারা ওই ব্যক্তিকে হত্যা করেনি বলে আমাদের জানিয়েছে।

আরোও পড়ুন: শেরপুরের শ্রীবরদীতে এক অটো চালকের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার

যশোর নাভারণ “খ” সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান বলেন, বেনাপোলের রঘুনাথপুর সীমান্তবর্তী মাঠ থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে হত্যা করে মাঠে ফেলে গেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। মৃতদেহ ভারত সীমান্তের নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। কি ভাবে হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে এটা তদন্ত না করে বলা সম্ভব না। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button