শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে নিখোঁজের ৫দিন পর এক নারীর লাশ উদ্ধার

রেজাউল করিম বকুল, শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে নিখোঁজের ৫দিন পরে মাটিতে পুঁতে রাখা এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ওই নারী নাছিমা বেগম (৩৫) উপজেলার পূর্ব মানিককুড়া গ্রামের আমির আলী স্ত্রী। বৃহস্পতিবার পার্শ্ববর্তী বিশগিরি পাড়া থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে এ তথ্য পাওয়া যায়।

জানা যায়, গত শনিবার বিকালে বাড়ি থেকে বের হয় পূর্ব মানিককুড়া গ্রামের বাসিন্দা আমির আলীর স্ত্রী পাঁচ সন্তানের জননী নাছিমা বেগম। রাতে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন স্বজনেরা খোঁজাখুঁজি করেন। এক পর্যায়ে নালিতাবাড়ী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তার স্বামী আমির আলী।

বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি থেকে প্রায় আধাকিলোমিটার দূরে বিশগিরিপাড়া বনাঞ্চলে সন্ধানে নামেন স্বজনেরা। এসময় জঙ্গলের উপরে কাকের ডাক শোনে এগিয়ে আসেন নাছিমার মা গুলেরা বেগম। ঝোপের মাঝে মাটি ফুঁড়ে বেড়িয়ে থাকা মেয়ের অর্ধগলিত ও শেয়ালে কামড়ানো হাত-পা দেখে আঁতকে উঠেন। তার ডাক-চিৎকারে ছুটে আসেন অন্যরাও। খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার আফরোজা নাজনীনসহ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যান। মরদেহ উদ্ধারে আসেন সিআইডি, সিআইডি’র ক্রাইম সিন ইউনিট, র‌্যাব ও পিবিআই সদস্যরা।

নাছিমার স্বামী গ্রাম পুলিশ আমির আলী জানান, শনিবার সারাদিন সংসারের কাজ সেড়ে সন্ধ্যার আগে বাড়ি থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ হয় নাছিমা। মাথায় সামান্য সমস্যা থাকায় প্রায়ই বাড়ি থেকে বেরিয়ে নাছিমা আশপাশে যেতেন বলেও জানান তিনি। কিন্তু শনিবার ফিরে না আসায় এবং নিখোঁজের পাঁচদিন পেরিয়ে যাওয়ায় প্রত্যক্ষদর্শীদের তথ্যমতে বিশগিরিপাড়া বনের দিকে যেতে দেখেছেন শোনে আজ বিশগিরিপাড়া বনে তল্লাসী চালানো হয়।

নাছিমার পিতা নাদির আলী জানান, আমির আলীর প্রথম এবং দ্বিতীয় স্ত্রী একটি করে সন্তান রেখে মারা গেছেন। তৃতীয় স্ত্রী এক সন্তান নিয়ে ঢাকায় থাকেন। তার মেয়ে নাছিমা আমির আলীর চতূর্থ স্ত্রী এবং এ ঘরে পাঁচ সন্তানের জন্ম হয়েছে। এরমধ্যে বেঁচে আছে চার সন্তান। বিয়ের পর থেকেই তার মেয়ে এবং জামাতাসহ নাতি রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, বনের আশপাশে থাকা কোন অপরাধী চক্র নাছিমাকে হত্যা করে মাটিতে পুঁতে রেখেছে।

স্থানীয় এবং পাশাপাশি দুই ইউপি চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম খোকা ও নিয়ামুল কাউসার জানান, এ বনের ভিতরে একাধিক জায়গায় জুয়া এবং গাঁজার আসর বসে। ফলে এখানে অপরাধীদের আনাগোনা রয়েছে।

নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমদাদুল হক জানান, খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধারে থানা পুলিশ, পিবিআই, সিআইডি ও র‌্যাবের টিম ঘটনাস্থলে আসে। হত্যাকান্ডের কারণ ও অপরাধী সনাক্তে কাজ চলছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button