কারখানার পানির লাইনে কপাল পুড়েছে  কৃষকের! 

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

গাজীপুরের শ্রীপুরে বাউন্ডারি ঘেঁষে কৃষকের জমিতে পানির লাইন দিয়ে ফসল নষ্টের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে স্থানীয় সাংসদসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করলেও প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলছেনা বলে দাবী কৃষকদের।

ফখরুল ইসলাম নামে এক কৃষকের লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের টেংরা গ্রামের মধ্যপাড়া এলাকায় সাইনবোর্ড বিহীন একটি সিরামিক কারখানার কাজ চলছে। আশপাশের ফসলি জমি থাকার পরও কারখানার পানির লাইন কৃষকের জমিতে নিষ্কাশন করায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও অপরিশোধিত দূষিত পানিতে ভবিষ্যতে আশপাশের পরিবেশের জন্য হুমকির কারন হবে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

কৃষক ফখরুল বলেন, স্থানীয় জমির দালাল বিল্লাল আমার এ জমি কারখানার কাছে বিক্রি করার জন্য বলেছিল। জমি না দেওয়ায় ওই পানির লাইন অপরিকল্পিত ভাবে স্থাপনের মাধ্যমে আমাকে হয়রানি করে জমি হাতিয়ে নিতে চাচ্ছে। আমি স্থানীয় মেম্বার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানালেও কোনো সুবিচার পাইনি।

এ বিষয়ে বিল্লাল হোসেন বলেন, কারখানার প্রয়োজনে আমি বেচাকেনা করি। স্থাপনা নির্মাণের দায়িত্ব আমার নয়। তবে, ফখরুলের এ জমি কারখানার কাছে বিক্রির বিষয়ে কথাবার্তা হয়েছিল।

পানি নিষ্কাশনের বিষয়টি স্বীকার করে কারখানার ম্যানেজার জয়নাল হোসেন বলেন, “কাজ করার আগে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। আপনি নিউজ করেও লাভ হবে না। বিস্তারিত জানতে হলে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বারের সাথে কথা বলেন”।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার আইনুল হক বলেন, কাজ শুরুর কিছুদিন পর কৃষকের অভিযোগের ভিত্তিতে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত হই। কিন্তু জমির দিকে আরও চালু দিলে ড্রেনের পানি নাকি নিষ্কাশনে ব্যাঘাত ঘটবে বলে জানিয়েছেন কারখানা কর্তৃপক্ষ। তারপরও বিষয়টি বিবেচনার কথা বলেছি।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তরিকুল ইসলাম মোহনা টেলিভিশন অনলাইনকে বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তের পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button