প্রেমিকের সাথে দেখা করতে এসে ধর্ষণের শিকার নবম শ্রেণির  ছাত্রী

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি

মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে নবম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীর সাথে শামীম নামের এক যুবকের সঙ্গে। প্রেমিকের সাথে থার্টি ফার্স্ট উপলক্ষে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয় স্কুল ছাত্রীটি। প্রেমিক ও তার বন্ধু মিলে তাকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করে ওই কিশোরী।

ঘটনাটি ঘটে শনিবার (৩১ ডিসেম্বার) বিকেল চারটার দিকে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বিশ্বম্বরর্দী এলাকায়। পুলিশ আকটকৃতদের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে গেলে কিশোরী তাদের সনাক্ত করে ।

পুলিশ মোবাইল নাম্বারের সূত্র ধরে রবিবার (১ জানুয়ারি) বিকেলে শামীম ফকির ওরফে হাসান (২৪) ও ইয়াসিন মোল্লা ওরফে রাব্বি (১৫) নামে তাদের দুই জনকে  আটক করে।

ভুক্তভোগী  ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই শিক্ষার্থীর সাথে এক মাস আগে মোবাইলের মাধ্যমে পরিচয় হয় রাজৈর উপজেলার বিশ্বম্বরদী পরিচয় দেওয়া শামীম ফকির  ওরফে হাসান নামের এক তরুণের সাথে। কথা বলতে বলতে এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তারা। এরপরে শনিবার বিকেলে থার্টি ফার্স্ট উপলক্ষে ওই স্কুল শিক্ষার্থীকে দেখা করার কথা বলে শামীম। পরে মেয়েটি দেখা করতে আসলে তাকে  নিয়ে রাজৈর উপজেলার সাখারপাড় ব্রীজ এলাকায় ডেকে নিয়ে যায় শামীম।

সে সময় শামীম ফকির ওরফে হাসান এর সাথে তার এক বন্ধু ইয়াসিনও ছিল। পরে ওই কিশোরীকে ব্রীজের পাশে একটি জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে শামীম। মেয়েটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ফেলে পালিয়ে যায় ওই দুই বখাটে। স্থানীয়দের মাধ্যমে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় পরিবারের স্বজনরা তাকে রাত সাড়ে ১২টার দিকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। শামীম ও ইয়াসিন রাজৈর উপজেলার পশ্চিম রাজৈর এলাকার এসকান্দার ফকির ও পাট্টাু মোল্লার  ছেলে।

রাজৈর থানার অফিসার ইনচার্জ মো আলমগীর হোসেন বলেন, হাসপাতালে গিয়ে ভিকটিম ও তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত হিসেবে  শামীম ফকির ও ইয়াসিন মোল্লা নামে দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button