সরকারি অর্থ তছরুপের অভিযোগে সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতী বরখাস্ত 

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : আব্দুল  জলিল

সাতসরকারি অর্থ তছরুপের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ১৫ জুন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার বিভাগ পৌর-১ এর ৪৬.০০.০০০০.০৬৩.২৭.০০৪.২২-৭৭০ নাং স্মারকের উপ- সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ এর বিরুদ্ধে বিদ্যমান বিধি- বিধান যথাযথভাবে অনুসরণ না করে মার্চ ২০১৬ হতে জুন ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ৫৮ লক্ষ,১৯ উনিশ হাজার ৭০১ সাতশত এক টাকা পানির বিল মওকুফসহ বিল যথাযথভাবে আদায় না করে অধিকাংশ ক্ষেত্রে মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।
এছাড়া ১৪২৩-১৪২৮ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত ৬ বছরে সাতক্ষীরা পৌরসভার হাট-বাজার ইজারা বাবদ ৬৬ লক্ষ ৩৯ উনচল্লিশ হাজার, পাঁচশত একান্ন টাকা বকেয়া রয়েছে। এছাড়া ভ্যাট, আয়কর বাবদ ৩৬ ছত্রিশ লক্ষ ৭০ হাজার ৯৭০ টাকা আদায় ও সরকারী খাতে জমা করা হয়নি এবং উক্ত সময়ের ইজারা লব্ধ অর্থ হাট-বাজার ইজারা নীতিমালা-২০১১ অনুযায়ী বন্টন না করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। তদন্তকালীন সময় পর্যন্ত মোট ১ কোটি ২৬,লক্ষ ২২ বাইশ হাজার ৯৪৩ টাকার পৌরকর মওকুফ করা হয়েছে। উক্ত পৌরকর যথাযথভাবে আদায় না করে অধিকাংশ ক্ষেত্রে মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে এবং নিয়ম-কানুন যথাযথভাবে অনুসরণ না করে মার্চ ২০১৬ হতে ডিসেম্বর ২০২১ পর্যন্ত সময়ে ১৪লক্ষ ১৩হাজার ৭২৬ টাকা ট্রেড লাইসেন্স ফি মওকুফ মেয়র কর্তৃক এককভাবে মওকুফ করার অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩১(১) মোতাবেক সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাজকিন আহমেদ এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের মধ্যে উল্লেখিত অভিযোগসমূহ তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩২ এর উপ-ধারা (১)(ঘ) মোতাবেক অসদাচরণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে একই আইনের ধারা ৩১(১) অনুযায়ী সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়রের পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হল।
এবিষয়ে সাতক্ষীরা পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফিরোজ আহমেদ বলেন,পৌরসভার মেয়রের  অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ১১ জন কাউন্সিলর চলতি বছরের মার্চ মাসে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয় স্থানীয় সরকার বিভাগের সাতক্ষীরার উপ-পরিচালক মাশরুবা ফেরদৌসকে। তবে মাশরুবা ফেরদৌসের তদন্তে অভিযোগের সত্যতা না মিললে তারা অধিকতর তদন্তের জন্য আবারো স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের যুগ্ন সচিব আব্দুস সবুর অধিকতর তদন্তে পৌরমেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতির সত্যতা পান। এ পরিপ্রেক্ষিতে  স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩২ এর উপ-ধারা (১)(ঘ) মোতাবেক অসদাচরণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে একই আইনের ধারা ৩১(১) অনুযায়ী সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়রের পদ থেকে তাজকিন আহমেদ চিশতিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button