সিরাজগঞ্জে ৪১ হাজার মানুষ পানিবন্দি, ভাঙ্গন অব্যহত

সিরাজগঞ্জপ্রতিনিধি: ইসরাইল হোসেন বাবু

যমুনা নদীর পানি কমতে শুরু করায় সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ৮ সেন্টিমিটার কমে শহর রক্ষা বাঁধ হার্ডপয়েন্ট এলাকায় ৪৫ ও কাজিপুর পয়েন্টে ৬ সেন্টিমিটার কমে ৫৬ নদীর পানি সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছে। তবে অভ্যন্তরীণ নদ-নদীর পানি এখনো বাড়ছে। জেলার চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার কয়েকটি স্থানে ভাঙ্গন অব্যহত রয়েছে। ভাঙ্গনরোধে কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

এদিকে, বন্যায় জেলার কাজিপুর, সিরাজগঞ্জ সদর, বেলকুচি, শাহজাদপুর ও চৌহালী এ ৫টি উপজেলার ৩৮টি ইউনিয়নের প্রায় সাড়ে ৮ হাজার পরিবারের ৪১ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব এলাকায় ১৮৪টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হলেও মানুষ এখনো সেখানে উঠেনি। কিছু মানুষ উচু স্থান ও বাঁধের ওপর আশ্রয় নিয়েছে। পানি উঠার কারনে বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। দুর্গত এলাকায় শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট এবং স্যানিটেশনসহ নানা সমস্যা দেখা দিচ্ছে। সদরের বিয়ারা এলাকায় মাটির রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ায় দুই শতাধিক পরিবারের মানুষ নৌকায় চলাচল করছে।

এছাড়াও বন্যা আক্রান্ত ৫টি উপজেলার নিম্নাঞ্চলের ৬ হাজার ৯২ হেক্টর জমির আউশ ধান, পাট, বাদাম, তিল, কাউন, ধুইনচ্যা সহ উঠতি ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button