বন্যা পরিস্থিতিরও অবনতি হচ্ছে সিলেটে, সুরমা ও কুশিয়ারায় পানিবৃদ্ধি

সিলেট প্রতিনিধি: শিপার চৌধুরী 

সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) আজ মঙ্গলবার সকালে নদীগুলোর পানিসীমার সর্বশেষ তথ্য জানিয়েছে।পাউবো জানায়, আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর পানি কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১.৪৩ মিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। অথচ গতকাল একই সময়ে এ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ১.২৫ মিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

 

সুরমার পানি সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমার ২৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বইছে। এ পয়েন্টে পানি গতকালের চেয়ে আজ বেড়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় সিলেট পয়েন্টে পানি ছিল ১০.৯০ মিটার। আজ সকালে পানিসীমা দাঁড়িয়েছে ১১.০৯ মিটার।

 

কুশিয়ারা নদীর পানি শেওলা পয়েন্টে বিপৎসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গতকালের চেয়ে এ পয়েন্টেও আজ পানি বেড়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় পানিসীমা ছিল ১৩.৪০ মিটার; আজ সকালে হয় ১৩.৫০ মিটার।এ নদীর পানি শেরপুর পয়েন্টে বেড়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় এ পয়েন্টে পানিসীমা ছিল ৭.০০ মিটার; আজ সকাল ৯টায় পানিসীমা হয় ৭.০৯ মিটার। পানি বেড়েছে ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টেও। এখানে গতকাল পানিসীমা ছিল ৮.৮৪ মিটার; আজ সকাল ৯টায় পানিসীমা দাঁড়ায় ৯.০৫ মিটার।

 

এদিকে, গোয়াইনঘাটের সারি নদীর পানি গতকালের চেয়ে কিছুটা কমে বিপৎসীমার নিচে নেমেছে। গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় পানিসীমা ছিল ১২.৩৭, যা বিপৎসীমা থেকে ২ সেন্টিমিটার বেশি। আজ সকালে পানিসীমা হয় ১২.৩০।

 

এ ছাড়া কানাইঘাটের লোভা নদীর পানি গতকালের চেয়ে বেড়েছে ২৭ সেন্টিমিটার। গতকাল ছিল ১৪.৬৫ মিটার; আজ সকালে ১৪.৯২ মিটার।সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির আপাতত কোনো লক্ষণ নেই। বিভিন্ন উপজেলা প্লাবিত হওয়ার পর এখন সিলেট মহানগরীর বিভিন্ন এলাকাও পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। উজানের ঢল আর বৃষ্টি না থামায় পরিস্থিতি মোড় নিচ্ছে চরম দুর্ভোগের দিকে।

 

জানা গেছে, অব্যাহত পানিবৃদ্ধির কারণে সিলেট নগরীর বিভিন্ন এলাকায় মানুষের রাত কেটেছে নির্ঘুম। বাসাব-বাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় মানুষের ভোগান্তির যেন কোনো শেষ নেই।এদিকে, গতকাল সোমবার থেকে পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে শুরু করে। সুরমা নদীর পানি বাড়তে থাকায় এর তীরবর্তী সিলেট নগরীর বিভিন্ন এলাকায় পানি ঢুকতে শুরু করে। নগরীর শাহজালাল উপশহর, সোবহানীঘাট, কালীঘাট, চাঁদনীঘাট, ছড়ারপাড়,শেখঘাট, তালতলা, কলাপাড়া, মজুমদারপাড়া,মাছিমপুরসহ, উপশহরের বিভিন্ন এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। সময় গড়ানোর সাথে সাথে নতুন নতুন এলাকায় ঢুকছে পানি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এইভাবে বৃষ্টি  অব্যাহত থাকলে পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আংশকা করছেন। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button