বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বিজ্ঞাপনমুক্ত পরিষেবা চালু হচ্ছে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীদের জন্য

মোহনা অনলাইন

আগামী মাস থেকে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামের গ্রাহকরা বিজ্ঞাপনমুক্ত পরিষেবা ব্যবহার করতে পারবেন বলে ঘোষণা দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কোম্পানি মেটা। তবে শুধুমাত্র ইউরোপের দেশগুলোর গ্রাহকদের জন্যই আগামী মাস থেকে অর্থের বিনিময়ে এই সেবা চালু হচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের কঠোর নীতিমালার মুখে এই পরিষেবা চালু করতে বাধ্য হয়েছে মেটা। গ্রাহকদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার নীতিমালা ভঙ্গের অভিযোগে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মেটাকে ৩৯০ মিলিয়ন ইউরো সমপরিমাণ অর্থ জরিমানা করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর্তৃপক্ষ। ফেসবুক ব্যবহারের শর্ত হিসেবে গ্রাহকদের বিজ্ঞাপন দেখতে বাধ্য করার অভিযোগ আনা হয় মেটার বিরুদ্ধে।

গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV

মঙ্গলবার (৩১ অক্টোবর) নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউরোপীয় নীতিমালার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আইসল্যান্ড, লিখটেনস্টাইন, নরওয়ে এবং সুইজারল্যান্ডের জন্য নভেম্বর মাস থেকে ‍এই সাবস্ক্রিপশন সার্ভিস চালুর কথা জানিয়েছে মেটা। অবশ্য এসব দেশের গ্রাহকরা আগের মতোই বিনামূল্যে বিজ্ঞাপন সংবলিত ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করতে পারবেন, তবে বিজ্ঞাপনমুক্ত সেবা পেতে তাদের অর্থের বিনিময়ে সাবস্ক্রিপশন করতে হবে।

এক্ষেত্রে ওয়েব ভার্সনের জন্য মাসে ৯ দশমিক ৯৯ ইউরো এবং আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য ১২ দশমিক ৯৯ ইউরো সাবস্ক্রিপশন চার্জ দিতে হবে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টধারীদের। তবে ২০২৪ সালের মার্চ মাস থেকে গ্রাহকদের ব্যবহার করা অতিরিক্ত প্রতিটি অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রে ওয়েব ভার্সনের জন্য অতিরিক্ত ৬ ইউরো এবং মোবাইল ফোনের ক্ষেত্রে ৮ ইউরো দিতে হবে বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস।

তবে, এই পরিষেবা মেটার দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা ব্যবসায়িক নীতির পরিবর্তন বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই গ্রাহকদের বিনামূল্যে পরিষেবা দেয়ার বিনিময়ে বিজ্ঞাপন বিক্রি করে আসছে মেটা, যেন বিজ্ঞাপনদাতারা তাদের পছন্দের গ্রাহকদের কাছে নিজেদের পণ্য বা সেবাকে পৌঁছাতে পারে। মেটার মতো একই ধরনের ব্যবসায়িক নীতি অনুসরণ করে আসছে অ্যামাজন, অ্যাপল, গুগল টিকটকের মতো অন্যান্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

তবে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর এই ব্যবসায়িক নীতিমালাকে ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন বলে মনে করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এর অংশ হিসেবে গত জুলাই মাসে মেটার আওতাধীন তিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকদের অনুমতি ছাড়া তথ্য সংগ্রহে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সর্বোচ্চ আদালত ইউরোপিয়ান কোর্ট অব জাস্টিস।

এ পরিস্থিতিতে ইউরোপে নিজেদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নীতিমালার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে নিজেদের পরিষেবার ধরন নতুন করে সাজাতে বাধ্য হচ্ছে এসব প্রতিষ্ঠান। ২৭ দেশের জোট ইউরোপীয় ইউনিয়নে ৪৫ কোটি মানুষের বসবাস।

author avatar
Delowar Hossain Litu
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button