জাতীয়

মেট্রোরেলে বিজ্ঞাপন মডিফিকেশনের নির্দেশ তদন্ত কমিটির

মোহনা অনলাইন

বর্তমান সরকারের মেগা প্রজেক্টগুলোর মধ্যে অন্যতম ঢাকা মেট্রোরেল। শুরুতে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত চালু থাকলেও এখন মতিঝিল পর্যন্ত পুরো পথে মেট্রোরেল চালু হওয়ায় এর সুফল ভোগ করছেন নগরবাসী।

কিন্তু মেট্রোরেলে অপরিকল্পিতভাবে বিজ্ঞাপন সাঁটানো নিয়ে বিপাকে পড়েছে মেট্রোরেল পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) ও বিজ্ঞাপনী সংস্থা মিডিয়াকম লিমিটেড বাংলাদেশ। সাঁটানো বিজ্ঞাপনে মেট্রোরেলের সৌন্দর্য নষ্ট হয়েছে— যাত্রীদের এমন ক্ষোভ আমলে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ডিএমটিসিএল। তদন্ত কমিটি ইতোমধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিজ্ঞাপনী সংস্থাকে দ্রুত মডিফিকেশনের (পরিবর্তন) নির্দেশ দিয়েছে।

গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV

গত সেপ্টেম্বর মাসে পাঁচ কোটি টাকায় বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপন এজেন্সি মিডিয়াকমের সঙ্গে ডিএমটিসিএলের চুক্তি হয়। এরই অংশ হিসেবে বিজ্ঞাপনী সংস্থাটি প্রথমবার চলতি মাসে (নভেম্বর) মেট্রোরেলের একটি কোচের ভেতরে অপরিকল্পিতভাবে বিজ্ঞাপন সাঁটিয়ে জনসাধারণের সমালোচনার মুখে পড়ে।

অপরিকল্পিতভাবে বিজ্ঞাপন সাঁটানোর বিষয়টি প্রথম নজরে আসে গত ১৩ নভেম্বর। সাঁটানো বিজ্ঞাপন মেট্রোরেলের সৌন্দর্য নষ্ট করেছে বলে ওই দিনই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মেট্রোরেলের যাত্রীসহ সারা দেশের মানুষ। পরে বিষয়টি আমলে নেয় ডিএমটিসিএল।

এ প্রসঙ্গে যোগাযোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জায়গা খালি আছে বলে কোচের সব অংশে বিজ্ঞাপন সাঁটিয়ে দৃষ্টিকটু করবে, এটি হওয়া উচিত নয়। এদিকে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে যথাযথ নজর দিতে হবে।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য মেট্রোরেলে জায়গা ভাড়া দেওয়া হয়। এমনই পরিপ্রেক্ষিতে মেট্রোরেল থেকে বিজ্ঞাপন বাবদ আয় করার সিদ্ধান্ত নেয় ডিএমটিসিএল। ডিএমটিসিএল’র দায়িত্বশীল সূত্রে জানিয়েছে, গত ১৪ সেপ্টেম্বর পাঁচ কোটি টাকায় বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপন এজেন্সি মিডিয়াকমের সঙ্গে ডিএমটিসিএলের চুক্তি হয়। এরই অংশ হিসেবে বিজ্ঞাপনী সংস্থাটি প্রথমবার চলতি মাসে (নভেম্বর) মেট্রোরেলের একটি কোচের ভেতরে অপরিকল্পিতভাবে বিজ্ঞাপন সাঁটিয়ে জনসাধারণের সমালোচনার মুখে পড়ে।

এমন সমালোচনার মুখে পড়ে ১৩ নভেম্বর ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের (লাইন- ৬) অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) খোন্দকার এহতেশামুল কবীরকে প্রধান করে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে ডিএমটিসিএল। পরে তদন্ত কমিটির সদস্যরা গত ১৪ নভেম্বর আগারগাঁও থেকে উত্তরা পর্যন্ত পরিদর্শন করে।

author avatar
Editor Online
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button