ফেনীর ভারতীয় সীমান্তে বাংলাদেশী নাগরিকের গলিত মরদেহ

তোফায়েল নিলয়, ফেনী প্রতিনিধি

পরশুরামের বাঁশপদুয়া উত্তর পাড়া সীমান্তের নো ম্যানস্ ল্যান্ডে মেজবাহর (৪৭) নামে এক ব্যক্তির লাশ পাওয়া গেছে। সে ওই এলাকার মৃত মফিজুর রহমানের ছেলে।
বুধবার (১৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয়রা তার লাশ দেখতে পায়।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত রোববার বিকালে মেজবাহর সীমান্ত এলাকায় গেলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফ তাকে আটক করে। পরে ঘটনাস্থলে তাকে কিল-ঘুষি এবং লাথি দিয়ে আঘাত করতে দেখা যায়। এসময় তিনটি গুলির শব্দ শোনা যায়। এরপর গত ৩দিন আশেপাশে খোঁজাখুঁজি করে তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় কাউন্সিলর মো. সুমন বলেন, মেজবাহারের খোঁজে সকালে এলাকার লোকজনকে সীমান্তে পাঠালে জঙ্গলের ভেতর লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। তার মুখের অংশ থেতলে গেছে।

এবিষয়ে ফেনী জয়লষ্করস্থ চার বিজিবির অধিনায়ক লে: কর্ণেল একেএম আরিফুল ইসলাম জানান, স্থানীয়রা জানিয়েছেন পরশুরামের বাঁশপদুয়া সীমান্তে একটি গলিত মরদেহ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ পক্রিয়াধীন রয়েছে। পরিবার এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ দায়ের করেনি।

পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দা শমসাদ বেগম জানান, ভারতীয় সীমান্তে বাংলাদেশী এক কৃষক মারা গেছে। স্থানীয়দের কাছ থেকে এমনটা খবর পেয়েছি। মৃতদেহ উদ্ধারের জন্য পুলিশ ও বিজিবি যৌথভাবে কাজ করছে। সীমান্তে যে মৃতদেহ আছে এটি বাংলাদেশী কৃষক মেজবাহার৷

নিহতের স্ত্রী মরিয়ম জানিয়েছে, ভারতীয় সীমান্তের ভেতরে তার স্বামীর লাশ পাওয়া গেছে। তিনি অভিযোগ করেন, ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী গুলি করে তার স্বামীকে মেরেছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button