জীবনধারা

যে রোগে চুল পড়ে যায়

এবারের ৯৪তম অস্কারের আসরের সবচেয়ে গরম খবর হচ্ছে—সঞ্চালক ক্রিস রককে হলিউড তারকা উইল স্মিথের চড় মারা। অনুষ্ঠান চলাকালীন ক্রিস রক উইলের স্ত্রী হলিউড অভিনেত্রী জাডা পিংকেটকে নিয়ে রসিকতা করে বলেন, ‘জি আই জেনের সিক্যুয়ালের অপেক্ষায় আছি। ’ এতেই বেজায় চটে যান স্মিথ। তার পরেই ঘটে চড় মারার ঘটনাটি।

স্মিথের স্ত্রী জাডার মাথাতেও চুল কম থাকায় সম্ভবত রসিকতা করে তাঁকে ‘জি আই জেন ২’-এর নায়িকা হিসেবে ইঙ্গিত করেন ক্রিস। স্ত্রী জাডা পিংকেটের রোগ নিয়ে রসিকতা করাটা মোটেও সহ্য হয়নি হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথের। ২০১৮ সালে অ্যালোপেশিয়া রোগে আক্রান্ত হন জাডা।

অ্যালোপেশিয়া কী?

শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক সময় ভুল করে চুলের ফলিকলগুলোকে আক্রমণ করে বসে। এতে চুল পড়ে যেতে থাকে। এই রোগকেই বলে ‘অ্যালোপেশিয়া আরিয়াটা’। এতে ত্বকের ক্ষতি হলেও এর বাইরে কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি হয় না। বয়স, লিঙ্গভেদে যে কারো এ রোগ হতে পারে। সাধারণত ৩০ বছরের আগেই এ রোগ দেখা দেয়। আক্রান্ত প্রতি পাঁচজনের একজন জিনগত কারণে এই রোগে আক্রান্ত হন। অ্যালোপেশিয়া হলে খুব দ্রুতগতিতে চুল পড়তে থাকে।

কারণ

গবেষকরা এখনো বের করতে পারেননি কেন ইমিউন সিস্টেম চুলের ফলিকলকে আক্রমণ করে। তবে তাঁদের ধারণা, জিনগত কারণের সঙ্গে পরিবেশগত কারণও থাকতে পারে।

প্যাচি, টোটালিস ও ইউনিভার্সালিস—এই তিনভাবে এই রোগকে ভাগ করে থাকেন বিশেষজ্ঞরা।

কয়েনের মতো ছোট ছোট গোল জায়গাজুড়ে চুল পড়ে যায়। ফলে মাথার কোথাও কোথাও চুল থাকে। এ অবস্থাকে বলে ‘প্যাচি’। আর যাঁদের মাথায় কোনো চুলই আর অবশিষ্ট থাকে না তাঁরা ‘টোটালিস’ বিভাগে পড়েন। অন্যদিকে যাঁদের শরীরে চুল, লোম ও চোখের পাপড়ি কিছুই থাকে না তাঁরাই ‘ইউনিভার্সালিস’ বিভাগের।

চিকিৎসা

এই রোগে আক্রান্ত হলে পুরোপুরিভাবে সেরে ওঠার নজির বেশ কম। অ্যালোপেশিয়া আরিয়াটার চিকিৎসায় স্টেরয়েড ক্রিম, জেল বা মলম দ্বারাও কিছু ক্ষেত্রে চিকিৎসা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button