রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে যুক্তরাজ্যে

ইশতিয়াক হোসেন

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে ১০ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করছে যুক্তরাজ্যে। বাকিংহাম প্যালেসসহ গুরুত্বপূর্ণ সব স্থাপনায় অর্ধনমিত রাখা হয়েছে জাতীয় পতাকা। রাজকীয় রীতি অনুযায়ী তার মৃত্যুর পরে কী কী হবে আগে থেকেই ঠিক হয়ে রয়েছে।

ব্রিটেনের রানির মৃত্যুর পর তার শেষকৃত্য কীভাবে হবে, তা বহুদিন আগেই ঠিক করে রেখেছে রাজ পরিবার। রানির শেষকৃত্য সংক্রান্ত সম্পূর্ণ গোপন এ পরিকল্পনার নাম অপারেশন লন্ডন ব্রিজ। যদিও আজ পর্যন্ত এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি বাকিংহাম প্যালেস।

রাজপরিবার সূত্রে জানা গেছে, এলিজাবেথের মৃত্যুর ১০ দিন পরে তাকে সমাধিস্থ করা হবে। তার আগে তার ছেলে প্রিন্স চার্লস যুক্তরাজ্যের চারটি অঞ্চল সফর করবেন। ১৪টি কমনওয়েলথ রাষ্ট্রের প্রধান হিসেবে শোক-পালনে নেতৃত্ব দেবেন। ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তিন দিন রাখা হবে মরদেহ। শোকসভা হবে সেন্ট পলস ক্যাথিড্রালে।

দ্বিতীয় রানির মৃত্যু পরবর্তী ১২ দিন দেশটিতে সব কার্যক্রম প্রায় স্থবির থাকবে। যাতে দেশটির অর্থনীতিতে বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হতে পারে। ইতোমধ্যেই বদলে গেছে দেশটির জাতীয় সংগীত। শেষকৃত্য শেষ হওয়ার পরদিন পর্যন্ত পতাকা অর্ধনমিত থাকবে। শোক পালন করবে বিভিন্ন দেশে ব্রিটিশ দূতাবাসগুলোও।

এরই মধ্যে সিংহাসনে বসেছেন নতুন রাজা চালর্স। রীতি অনুযায়ী তিনি দেশটির পার্লামেন্ট ও চার্চের প্রতি অনুগত থাকার শপথ নিয়েছেন। চালর্স রাজা হওয়ায় প্রিন্স অব ওয়ালেস হয়েছেন প্রিন্স উইলিয়াম।

মৃত্যুর তৃতীয় দিন রানির কফিন বালমোরাল থেকে সড়কপথে হলিরুড হাউসে নিয়ে যাওয়া হবে। পরদিন রয়্যাল মাইল বরাবর হলিরুড থেকে সেন্ট জাইলস ক্যাথেড্রাল পর্যন্ত রাজপরিবারের সদস্যদের অংশগ্রহণে আনুষ্ঠানিক শোকযাত্রা হবে। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য সেন্ট জাইলস ক্যাথেড্রাল উন্মুক্ত থাকবে। আর রাষ্ট্রীয় শ্রদ্ধা জানানো হবে লন্ডনে।

পঞ্চম দিন সন্ধ্যায় রানির কফিন এডিনবার্গ ওয়েভারলি স্টেশনে স্থানান্তর করা হবে। সেখান থেকে রাতেই রাজকীয় ট্রেনে রওয়ানা করে পরদিন সকালে লন্ডনের সেন্ট প্যানক্রাস স্টেশনে পৌঁছানোর কথা। পরদিন লন্ডনে আনুষ্ঠানিকতার কয়েক ঘণ্টা আগে কফিনটি বাকিংহাম প্যালেসে পৌঁছাবে। সেখান থেকে কঠিন নেয়া হবে ওয়েস্ট মিনিস্টার হলে। সেখানে পাঁচ দিন রাখা হবে মরদেহ।

সপ্তম দিনেও রাষ্ট্রীয় শ্রদ্ধা জ্ঞাপন অব্যাহত থাকবে। অষ্টম দিন রাজা তৃতীয় চার্লস কার্ডিফের লাল্যান্ড ক্যাথেড্রালের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ওয়েলসে যাবেন। এরপর ওয়েলস পার্লামেন্ট যাবেন এবং সদস্যদের সমবেদনা গ্রহণ করবেন।

এরমধ্যেই কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর প্রতিনিধিরা লন্ডনে আসতে শুরু করবেন। নবম দিনে রাজা চার্লস বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা গভর্নর জেনারেল ও ফার্স্ট মিনিস্টারদের অভ্যর্থনা জানাবেন।

ভিআইপি বিদেশি অতিথিরা রাষ্ট্রীয় শ্রদ্ধানুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। পরদিন রাষ্ট্রীয় শবযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। সারাদেশে দুই মিনিট নীরবতা পালন করা হবে। উইন্ডসর ক্যাসেলের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে শেষ বিদায় জানানোর পর রাজকীয় ভল্টে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে সমাধিস্থ করা হবে।

এর এক বছর পর হবে নতুন রাজার রাজ্যভিষেক অনুষ্ঠান। ব্রিটেনে প্রায় ৭ দশক পর এমন অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। সেই অভিষেক অনুষ্ঠানও হবে সেই ওয়েস্টমিনিস্টার অ্যাবিতে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button