বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

টেসলার নতুন প্রতিদ্বন্দ্বী শাওমি বৈদ্যুতিক গাড়ি

মোহনা অনলাইন

বিশ্বে বৈদ্যুতিক গাড়ির পথিকৃৎ মার্কিন কোম্পানি টেসলাকে টেক্কা দিতে নতুন প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে চীনের স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান শাওমি। বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) শাওমি নিজেদের প্রথম বৈদ্যুতিক গাড়ি (ইভি) বাজারে এনেছে।  শুক্রবার থেকে এসইউ ৭ ও এসইউ ৭ ম্যাক্স নামের দু’টি মডেলের গাড়ির বিক্রিও শুরু হয়েছে।

এসইউ ৭ মডেলের প্রতিটি গাড়ির দাম ২ লাখ ১৫ হাজার ৯০০ ইউয়ান (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩২ লাখ ৫১ হাজার ৪৫২ টাকা) এবং এসইউ ৭ ম্যাক্স মডেলের প্রতিটির দাম ২ লাখ ৯৯ হাজার ৯০০ ইউয়ান (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪৫ লাখ ৫৮ হাজার ১৬৪ টাকা) হেঁকেছে শাওমি। কোম্পানির শীর্ষ নির্বাহী লেই জুন বিবিসিকে জানান, ক্রেতাদের কাছ থেকে অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছেন তারা। শুক্রবার সকালে মডেল দু’টি বিক্রির জন্য উন্মুক্ত করার পর প্রথম ২৭ মিনিটে ক্রেতাদের কাছ থেকে ৫০ হাজারেরও বেশি নতুন অর্ডার এসেছে বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV

শাওমির প্রথম বৈদ্যুতিক গাড়ির মডেল হচ্ছে স্পিড আল্ট্রা ৭ (এসইউ-৭)। এর দাম হবে চীনা মুদ্রায় ৫ লাখ ইউয়ানের (৭০ হাজার ডলার) নিচে। এসইউ-৭ গাড়িকে জার্মানির পোরশে কোম্পানির বিলাসবহুল টাইকান ও  প্যানামেরা স্পোর্টস কার মডেলের সঙ্গে তুলনা করছে শাওমি।

ফার্মটি আশা করছে, শাওমির জনপ্রিয় মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ও অন্যান্য ডিভাইসের সঙ্গে যুক্ত থাকা অপারেটিং সিস্টেম এসইউ-৭ গাড়িতেও বিদ্যমান থাকায় তা গ্রাহকদের কাছে বাড়তি আবেদন জুগাবে। এতে শাওমির মোবাইল অ্যাপগুলোতে সহজেই যুক্ত হতে পারবেন গাড়িটির চালক।

শাওমির প্রধান নির্বাহী লেই জুন বলেছেন, স্পিড আল্ট্রা৭ গাড়িতে ‘সুপার বৈদ্যুতিক মোটর’ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে যা টেসলার গাড়ির চেয়েও আর বেশি দ্রুত গতি দেবে। গাড়িটি একবার চার্জে ৬৬৮ থেকে ৮০০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলবে।

জুন বলেন, আশা করছি, আগামী কয়েক বছরে বিশ্বের শীর্ষ পাঁচটি গাড়ি নির্মাতা কোম্পানির একটিতে পরিণত হব আমরা।

রিসার্চ ফার্ম কাউন্টারপয়েন্টের তথ্য অনুসারে, শাওমি হচ্ছে বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোনের তৃতীয় বৃহত্তম বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান, যাদের হাতে রয়েছে বৈশ্বিক বাজারের প্রায় ১২ শতাংশ শেয়ার।

বৈদ্যুতিক গাড়ির বাজারে শাওমির প্রবেশ এমন সময়ে ঘটলো, যখন বিশ্বব্যাপী সবকিছুতেই উচ্চমূল্যস্ফীতির কারণে গাড়ি বিক্রয় কিছুটা মন্থর হয়ে পড়েছে। তাছাড়া শাওমিকে বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের অন্যতম ইলন মাস্কের টেসলা এবং চীনের আরেক ইভি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিওয়াইডির মতো প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে মূল্যযুদ্ধে নামতে হবে।

ইলন মাস্কের টেসলা সম্প্রতি চীনের বাজারে তাদের ইভি গাড়ির দাম হাজার হাজার ডলার কমাতে বাধ্য হয়েছে। কেননা, বিশ্বের শীর্ষ বিক্রিত ইভি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিওয়াইডির মতো স্থানীয় প্রতিদ্বন্দ্বীরা গাড়ির দাম কমিয়ে দিয়েছে।

শাওমি ঘোষণা দিয়েছে, আগামী ১০ বছরে তারা বৈদ্যুতিক গাড়ি ব্যবসায় ১০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে। বেইজিংয়ের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন গাড়ি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বিএআইসির একটি প্ল্যান্টে গাড়ি তৈরি করছে শাওমি, প্ল্যান্টটি বছরে ২ লাখ গাড়ি তৈরি করতে সক্ষম।

সাংহাইভিত্তিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান অটোমোবিলিটির প্রধান বিল রুশো বলেন, খুব অল্প সময়ে শাওমির এতদূর চলে আসাটা একটি কৃতিত্ব, তবে চূড়ান্ত কৃতিত্ব দেখানো হবে তখনই, যখন ইভি ব্র্যান্ড হিসেবে শাওমির একটি স্মার্ট ভোক্তা বাজার সৃষ্টি হবে।

তবে গবেষণা প্রতিষ্ঠান রিসটাড এনার্জির সিইও অভিষেক মুরালি মনে করেন, চীনা ইভি বাজার খুবই পরিপক্ক এবং ইভি নির্মাতাদের জন্য একটি খুব স্থিতিশীল একটি বাজার।

author avatar
Online Editor SEO
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button