বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

১০ লাখ মানুষকে মঙ্গলে পাঠাবেন ইলন মাস্ক

মোহনা অনলাইন

টেসলা, স্পেসএক্স ও স্টারলিংক কোম্পানির মালিক ইলন মাস্কের একটি বড় ধরনের স্বপ্ন রয়েছে। বিশ্বের সেরা এই ধনাঢ্য ব্যক্তির সেই স্বপ্ন অনেকটা অদ্ভুত মনে হতে পারে। কী সেই স্বপ্ন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ইলন মাস্ক জানিয়েছেন, মঙ্গল গ্রহে মানুষ পাঠানো তার অন্যতম ইচ্ছে। 

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্সে টেসলা ওনার্স সিলিকন ভ্যালে নামে একটি হ্যান্ডেল থেকে মাস্কের মালিকানাধীন স্পেসএক্স নির্মিত একটি রকেটের ভিডিও শেয়ার করা হয়। ক্যাপশনে লেখা হয়, স্টারশিপ হলো এখন পর্যন্ত নির্মিত বৃহত্তম রকেট এবং এটি আমাদের মঙ্গল গ্রহে নিয়ে যাবে।

গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV গুগল নিউজে ফলো করুন Mohona TV

পোস্টটি নিজের হ্যান্ডেলে শেয়ার করেন টেসলা সিইও ইলন মাস্ক। এর সঙ্গে তিনি লেখেন, আমরা মঙ্গল গ্রহে ১০ লাখ মানুষ নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি ‘গেম প্ল্যান’ তৈরি করছি।

গত সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) আরও একটি পোস্টে মঙ্গল গ্রহ নিয়ে নিজের আগ্রহ প্রকাশ করেন বর্তমান বিশ্বের শীর্ষ ধনী। মাস্ক ও তার ছেলের একটি ছবি এক্সে শেয়ার করে একজন লিখেছিলেন, সন্তান নেওয়া এবং তাদের সঙ্গে সময় কাটানোই আমার জীবনের সেরা আনন্দ।

পোস্টটি শেয়ার করে মাস্ক লেখেন, আর তারপরেই আমি মঙ্গল গ্রহের বিষয়ে ভাবতে শুরু করি। ছবিতে ইলন মাস্ককে বেশ আনমনা দেখাচ্ছিল। সেদিকে ইঙ্গিত করেই হয়তো কথাটি বলেছিলেন তিনি।

এ ধনকুবের একাধিকার বার বলেছেন, তিনি মঙ্গল গ্রহে উপনিবেশ স্থাপন করে মানুষকে ‘বহু গ্রহবাসী প্রজাতি’ বানাতে চান।

২০২১ সালে ইলন মাস্ক বলেছিলেন, মানুষ অন্যান্য প্রাণীর মতো এক গ্রহের প্রাণী হতে পারে না। মানুষকে একাধিক গ্রহে বসবাসকারী প্রাণী হতে হবে। মানুষ আজ থেকে ৫০ বছর আগে শেষবার চাঁদের বুকে পা রেখেছিল। তাদের আবার সেখানে যেতে হবে এবং সেখানে স্থায়ী ভিত্তি তৈরি করতে হবে। এরপর মঙ্গলের বুকে শহর বানিয়ে মানুষকে একাধিক গ্রহে বসবাসকারী সভ্যতার ধারক-বাহক হতে হবে।

প্রতিবছর কয়েক মেগা টন কার্গো মঙ্গলগ্রহে নেবে স্পেসএক্সের রকেট। ফলে এ শতকের মাঝামাঝি মানব বসতির জন্য প্রস্তুত হবে গ্রহটি। টুইট বার্তায় মাস্ক বলেন, ‘স্টারশিপের লক্ষ্য প্রতিদিন গড়ে তিনটি ফ্লাইট পরিচালনা করা। এতে প্রতিবছর এক হাজারের বেশি ফ্লাইট পাঠানো হবে। প্রতি ফ্লাইটে ১০০ টনের বেশি কার্গো যাবে। ফলে প্রতিবছর এক মেগাটন কার্গো পাঠানো হবে।’

‘এসএন১’ নামের স্টারশিপ প্রটোটাইপ রকেটটি এখন স্পেসএক্সের টেক্সাস কারখানায় নির্মাণাধীন। মঙ্গলগ্রহে বসতি স্থাপনে কী কী করা হবে তা নিয়ে ইলন মাস্ক বেশ সরব। তবে সেখানে মানুষ কীভাবে বেঁচে থাকবে, তা নিয়ে রয়েছে দ্বিধাদ্বন্দ্ব। কারণ অক্সিজেন বা পানি (বরফ আছে) কোনোটিই নেই মঙ্গলে। লাল গ্রহটিতে স্বনির্ভর বসতি স্থাপনে ব্যয় হবে ১০০ বিলিয়ন থেকে ১০ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের মধ্যে বলে ধারণা ইলন মাস্কের।

author avatar
Online Editor SEO
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button